সর্বশেষ সংযুক্তি
সুত্রপাত / কবিতা

কবিতা

চৌত্রিশ বছর পর

তানভীর রাহমানঃ সানরুম থেকে ডাইনিং রুমের এলাকা পেরিয়ে আমি শোবার ঘরে যাচ্ছিলাম, হঠাৎ দেখি বসার ঘরে বসে আছে প্রাক্তন প্রেমিকা! কিছুটা যোগসূত্র ছিলো বটে, চৌত্রিশ বছর পর যোগসূত্র শুধু স্মৃতিই হ’তে পারতো। আমি লক্ষ্য করলাম, প্রাক্তন প্রেমিকার চশমার পুরু লেন্স; দেখলাম অন্ধকারের মতো আলো ক’রে বসে আছে একজন প্রকট দালাল, …

বিস্তারিত পড়ুন »

বৈশ্বিক প্রজাপতি ও প্রেম

কায়েস সৈয়দঃ সিঁথির দুপাশে মৃত অরণ্যের হাতছানি অজুহাতে দুহাতে স্পর্শ করতেই বয়ে গেল বিশ্বায়নের বৈশ্বিক বাতাস বিষাক্ত কার্বন ডাই অক্সাইড ঠোঁটের আঙ্গিনায় প্রশ্বাসের ছোঁয়া পেতেই গলতে লাগলো গুরুগম্ভীর বৈশ্বিক বরফ ঘোর অমানিশা চোখের বারান্দায় অশ্রু পেয়ালায় চুমু দিতেই উড়তে লাগলো বহুব্রীহি বৈশ্বিক প্রজাপ্রতি থৈ থৈ জল কাঠফাঁটা রোদ আবার বিরাণ …

বিস্তারিত পড়ুন »

উমা’দি

শামীম আহসানঃ উমা’দি কখন এলে? কেমন আছো উমা’দি? উমা’দি তোমাদের লিলা খেলা শ্যূটিং এর খবর কি? দিদি সস্তা সিগারেট আছে খাবে? উমা’দি এ্যাশট্রের দিকে তাঁকিয়োও না গো, শরম দিয়ো না আর। আমার সমস্ত রাত্রি থেকে নিকোটিন চুষে নিয়ে, আধ-খাওয়া অবস্থায় এ্যাশট্রেতে রেখেছি। উমা’দি সরি রে অনেক দিন পর এলে দামি …

বিস্তারিত পড়ুন »

সস্তা কবিতা’ তবে একদাম’

লিটন বড়ুয়াঃ তোমার দুচোখে জ্বল জ্বল করছে দাসপ্রথা আর আমি প্রথাগত প্রেমিক জোছনায় ডুবে মরি- পুরানো আঙিনায়। প্রেম- ঘৃণা কোকিল- কাক জন্ম- মৃত্যুর সংঘর্ষে কত জীবন গেলো- এলো কত সময় প্রানের আগেই বিলীন হল। গুহার ভেতর আলো আলোর ভেতর গুহা জ্বল জ্বল করছে তোমার চেতনায় আকাশের গায়ে শুন্যতা অন্ধের চোখে …

বিস্তারিত পড়ুন »

একগুচ্ছ কবিতা ও টবিতা

কনক দাস কংকনঃ মাননীয় রাষ্ট্রপতি তারচেয়ে বরং কৃষকগুলো ধান বিক্রি করে মদ কিনুক চাল বিক্রি করে মৃত্যু দেশে, যে হারে মানুষ বাড়ছে যে হারে শিল্প বাড়ছে সে হারে কৃষক মরছে না ! সুতরাং আপনি তাদের মৃত্যুর নিশ্চয়তা সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করুন যেন শালারা,  সঠিক সময়ে এবং সঠিক স্থানে মরতে …

বিস্তারিত পড়ুন »

বিষাদময় প্রণয়

অম্লদেবীঃ অামি বড় সাধ করে ভালোবেসেছিলাম, বড় বেপরোয়ায় সুখ খুঁজেছি ভারী, অাপন গতি বেশ ভুলেছিলাম, তাই অাজ হোঁচট খেয়ে পড়লাম প্রাচীন পাহাড়ের খাদে। সেখানে অাদিম জীবন অামার পরিচয় দিলো। বলে,নারী তুই বড় লোভী। প্রেম হল ভ্রমের খেলা অাসলে সব ফাঁকা মায়া। তুই যে জীবন ভুলে,সাধ ছেড়ে, মহাবিশ্বের হিসাব ভুলে, কাছে …

বিস্তারিত পড়ুন »

আমার অপ্রাপ্তির গল্প

ধৈর্য কতবার আমাকে পায়ের নিচে পিষ্ট করেছে, অন্য কেউ এতো বেশি পিষ্ট হয়ে বেঁচে গিয়েছে সে সাক্ষী আমি। ধৈর্যকে মাঝেমাঝে আমি পাওয়ার অপেক্ষারত হারানো বলে ভুল করি। এত বেশি ধৈর্য ধরেছিলাম বলেই তো, অন্যের ধৈর্যের বাঁধ সে নিজে দায়িত্ব নিয়ে ভেঙে দিয়েছে। ধৈর্যকে লেখকরা যেভাবে লিখে তা আমার কাছে খুবই …

বিস্তারিত পড়ুন »

ক্রান্তির জিশু

দুয়ারে দুয়ারে মৃত্যু হানে কড়াঘাত সম্মুখে মুক্তি,পশ্চাতে পরাজয় অকাট্য যুক্তি মুছে দিতে চায় রক্তের ধারাপাত এই জনপদ ছেয়ে ফেলে ভয় উল্লাস দেখি দানবের,শাসকেরও খুনি হাত। পরাজয় আজ মানবের মানবতা বারবার ফিরে আসে কাল রাত স্তব্ধ কলম,নিষিদ্ধ কবিতা এই জনপদ বেনোস্রোতে ভাসে অকস্মাৎ! দুয়ারে মৃত্যু,সম্মুখে ঐ মুক্তি বিচ্ছিন্ন বিক্ষোভ জমে ওঠে …

বিস্তারিত পড়ুন »

শুধুই নিস্তব্দতা

ইদানিং নিজের কণ্ঠস্বর ভেঙ্গে ভেঙ্গে বের হওয়া শব্দের সাথে কথা বলতে ইচ্ছা হয় খুব কারন শব্দের ভেতর তুমি কাঁদছ অনন্তকাল ধরে ইদানিং মস্তিস্কের গুহার ভেতর প্রাগৈতিহাসিক নিস্তব্ধতার সাথে আড্ডা মারতে ইচ্চা হয় খুব কারন নিস্তব্ধতার ভেতর তুমি অভিমানী এক নারী ইদানিং আমি যা ভাবি ইদানিং আমি যা দেখি ইদানিং আমি …

বিস্তারিত পড়ুন »

অবমাননা

একাকি বিষণ্ণ রাত, জানালায় বিগত প্রেমের প্রতিচ্ছবি!জোনাকিরা জানিয়ে দেয় মিথ্যে প্রেমে কেটেছে কৈশোর! প্রেমের ফোয়ারা তুলে গান গায় নবীন কিশোর, অথচ বিষণ্ণতার রাতে আমার ঘুম আসে না, যেন এখনো আমার বুকের অন্তরালে শুধু তারই সাম্রাজ্য! এখনো দুঃস্বপ্ন হানা দেয় চোখের পাতায়, এখনো পাশ ফিরে শুয়ে দেখি তার অতীত মুখ! বিষণ্ণ …

বিস্তারিত পড়ুন »