ইভিএম নিয়ে কিছু প্রশ্ন !

ইভিএমে ভোট কারচুপি সম্ভব কি না এ নিয়ে যতজনের সংশয় আছে, তাঁর চেয়ে অনেকাংশে কম কিংবা হাতেগোনা কিছু মানুষ পাওয়া যাবে যাদের কোন সংশয় নেই। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের প্রদর্শনী চলছে সময় পেলে দেখতে যাওয়ার ইচ্ছা ছিল। কিন্তু যারা গিয়েছেন তাদের মন্তব্য এবং পত্রিকায় মারফত এর অপারেশন পদ্ধতি সম্পর্কে যা জেনেছি তাতে মনে হয়েছে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। কিন্তু কিছু তুলনামূলক বিশ্লেষণ না করে পারছি না।

১. সনাতন পদ্ধতিতে ভোট শুরুর পূর্বে স্বচ্ছ ও খালি বাক্স দেখানো হয়, ইভিএমে মোট ভোট 0 (শূন্য) দেখাতে হবে কিন্তু যাদেরকে দেখানো হবে তারা ওই পরিমাণ দক্ষ বা বুঝতে সক্ষম? কিংবা আদো দেখানো হবে !
২. সনাতন পদ্ধতিতে জাল ভোট দেয়ার সুযোগ থাকলেও ইভিএমে সে সুযোগ নেই, কারন ভোট দেয়ার আগে আঙ্গুলের ছাপ সার্ভার থেকে যাচাই করা হয়। কিন্তু আঙ্গুলের ছাপ না মিললে কিংবা নেটওয়ার্ক (Local Network কিংবা Internet Connection) ঠিক না থাকলে বিকল্প ব্যবস্থা আছে কিনা ? এটা যেমন থাকা ভালো আবার এতে জাল ভোটের সুযোগ বেড়ে যায়।
২. সনাতন পদ্ধতিতে ভোট গণনা ভুল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে এবং প্রচুর সময়ের প্রয়োজন হয় কিন্তু ইভিএমে এ সংক্রান্ত কোন ঝামেলাই নেই।
৩. সনাতন পদ্ধতিতে কেউ ইচ্ছাকৃত ভোটের গণনা ভুল করলে পুনরায় গণনা করা যায় কিন্তু ইভিএমে ইচ্ছাকৃত ভুলের পুনর্গণনা সম্ভব নয়।৪. প্রতিটি ইভিএম ব্যবহার করার পূর্বে এর গণনা ঠিকমত হয় কিনা, এটা যাচাই করবে কে ? ভোটকেন্দ্রে প্রতিটি ইভিএম যাচাই করার সুযোগ থাকবে কিনা, মেশিনটি যার অনুকূলে ভোট দেয়া হচ্ছে তার ভোট ঠিকমতো গণনা করছে কিনা তা ভোটকেন্দ্রেই যাচাই করার প্রয়োজন। কিন্তু এরকম যাচাইয়ের সুযোগ থাকবে কিনা কেউ বলতে পারছে না।
৫. মেশিন ঠিক মতো ভোট গণনা করেনি এমন অভিযোগ করলে তা যাচাইয়ের তেমন কোন সুযোগ নেই। তবে ছোট্ট একটি সুযোগ আছে, প্রত্যেকটি ইভিএম ভিন্ন ভিন্ন ভাবে টেস্ট ভোট দিয়ে যাচাই করা যায়। কিন্তু বর্তমান ইভিএম ব্যবহার সংক্রান্ত আইনে এরকম কোন ধারা বা সুযোগ রাখা হয়েছে কিনা জানিনা।যেহেতু ইভিএম এইদেশে প্রথমবার তাই এই সুযোগ রাখা দরকার।
৬. এছাড়া বিভিন্ন দেশের ইভিএমের ব্যবহার সংক্রান্ত প্রতিবেদনে জানা গেছে, ইভিএমকে বাইরে থেকে তারবিহীন পদ্ধতিতে সংযোগ নিয়ে কন্ট্রোল করা যায়। ধরে নিলাম নিলাম আমাদের দেশে এরকম দক্ষতা অর্জন করার সময় ও সুযোগ এখনো গড়ে ওঠেনি।
সুতরাং বলা যায়, এভিএমের উপর আমাদের আস্থার প্রয়োজন নেই, আমাদের আস্থার বেশী প্রয়োজন এর নির্মান কোশল, ফার্মওয়ার ও এর চালনাকারীর (অপারেটর) উপর। আস্থা প্রতিষ্টিত হওয়ার জন্য যে সময়ের প্রয়োজন তাঁর অনেক আগেই আমরা এর ব্যবহার শুরু করছিনা তো?

লেখক-অধ্যাপক ফজলুল করিম পাটোয়ারী
সাবেক ভারপ্রাপ্ত পরিচালক,আইআইটি ইনস্টিটিউট
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।

শেয়ার করুন

ব্লগার আমার কলম

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।