সুত্রপাত / অন্যান্য / অলিখিত কবিতা

অলিখিত কবিতা

শামীম আহসানঃ

মস্তক আর শরীরকে কবিতার ঘর নির্মাণের জন্য স্থির করলাম।
পৃথিবীর আলো নিভিয়ে দিলাম,
আকাশে একটা চাঁদ বসালাম,
কয়েকটা তারার দরকার!
তারা ছাড়া একলা চাঁদের দিকে তাকিয়ে রংওয়ালা শব্দ আসেনা!
আকাশে কয়েক’শ তারা বসিয়ে দিলাম!
এবার হবে কবিতা!
বাংলা বুঝবে কবিতা কাকে বলে!

একি!
শরীর ভারি ভারি লাগে কেন!
মাথা কেমন ঝিমঝিম করে!
প্রেম পল্লির মল্লিকার কথা মনে পর বার বার,
বুঝেছি!
শরীরকে হালকা করার জন্য বাড়তি রস বিসর্জন দিলাম,
ভেতরে প্রবেশ করালাম কড়া নিকোটিন।
মনে হচ্ছে এবার একটা পুরো সমাজ ওল্টানোর কবিতা লিখে ফেলবো।
না!

আরেকটা সিগারেট খায়।
এক কাপ চা হলে এবার জমে যেত!
মাঝে মাঝে সুচিতা রাতে আসে,
সারারাত গল্প করতে চায়,
বিরক্তি লাগে খুব!
আজকে যদি আসতো ভালোই হতো,
আজকে আর তাকে অপমান করতাম না।
বলতাম,
সুচিতা কথা বলবেনা প্লিজ,
যখন দেখবে সিগারেট ধরিয়েছি,
সঙ্গে সঙ্গে এক কাপ নিয়ে হাজির হবে।
কথা না বলতে পারলোও সে হয়তো কিছু মনে করতো না,
সারারাত আমার সাথে থাকতে পারছে,
এ-ই তার কাছে অনেক কিছু।
একি! এগুলো কি এলোমেলো ভাবছি।
আমার কবিতা!!
শুরু করা যাক….

আচ্ছা আকাশের তারা’রা কোথায় গেল!
একটা খালি তারা দেখা যায়,
না সেটা তো চাঁদ।
চোখ বন্ধ হয়ে আসছে কানো?
ঘুম আসবে?
ঘুম!
বহুদিন ঘুম আসেনা।
ঘুম না কবিতা!
ঘুম না কবিতা!
ঘুম না কবিতা!
ঘুম
ঘুম
ঘুম।

শেয়ার করুন
  • 21
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!