Home / রাজ্যের যুক্তি-তর্ক / সুসময়ে গান গাওয়া অসময়ে লাফ দেওয়া ।। ইমরান হোসেন মুন্না

সুসময়ে গান গাওয়া অসময়ে লাফ দেওয়া ।। ইমরান হোসেন মুন্না

ইমরান হোসেন মুন্না:

কাল্পনিকার সাথে আমার সম্পর্কে হলো প্রায় দুই যুগ ধরে পাড়ার শিশু হতে বয়স্ক পুরুষরাও জানে আমাদের ভাবের কথা এক সাথে খেতাম ঘুরতাম মজা করতাম রিক্সার হুগ খুলে দিয়ে গুরে বেড়াতাম শহুরের অলিতে গলিতে একসাথে অনেক মজাও করতাম

হাতে হাত রেখে গুরে যাওয়া হত সমুদ্রের পাড়ে বসে সময় কাটাতাম আর মাঝে মধ্যে সমুদ্র স্নানে ও যেতাম আর সুখে দূঃখে পাশে থেকেছি দিবা কিংবা রাত্রিতে।আমারও হরেক রকম আবদার মেটাত কাল্পনিকা তাতেও আমি অম্লান সুখী ছিলাম।

কিছু সময় পার হতে না হতে দেখি কাল্পনিকার বেশ পরিবর্তন হচ্ছে ফোন দেয় না তেমন আগের মতো কথা হয় না আগের মতো দেখা করতে বল্লে নানা ধরনের বায়না ধরে হরেক রকমের কাজ দেখিয়ে ফাঁকি দেয়।

তার প্রিয় খাবার ফুসকার কথা বল্লেও সে এড়িয়ে যায়।বলে কি এগুলো তো ক্ষেতরা খায় আমি কত স্মার্ট আমি এগুলো পরিহার করি এখন শুনপে আমি অবোধ হই যে কাল্পনিকা আমার আদর্শকে মানতো বুঝতো সে কিনা এখন অন্যের আদর্শে আদর্শিত হতে চাই।

তার বুকে ছিলো আমার স্বপন।

কিছু দিন পর শুনলাম কাল্পনিকার বিয়ে হচ্ছে এক মোটা সোটা স্বাস্থ্যবান নর যার সবকিছু আছে কিন্তু নেই কোন গুনাবলি অনেক আকুতি মিনতি করে কাল্পনিকার বাপরে বল্লাম চাচা আমি তো আপ্নের মেয়েরে আদর মোহাব্বত করি।

সে আমার সাথে অনেকদিন যাবৎ খেয়েছে ফিরেছে ঘুরেছে আরও কত কি আপনি এটা হতে দিতে পারেন না।চট করেই কাল্পনিকা কে ডাক দিলো হুট করে চলে এলো কাল্পনিকা তুমি কি দাড়িয়ে থাকা ছেলেটি কে চেন বা জানো।

টাস করে কাল্পনিকা উত্তর দিলো না বাবা এ কে আমি তো আগে কোনদিন দেখিনি shocked খেলাম আমি অনেক আকুতি মিনতি করি কাল্পনিকারে একসময় সে আমার মুখে থুথু ছিটায় দুর হ বলে।

কি দিয়েছিস আমায় দেখ আমার নতুন সাথী কে সে আমায় অনেক কিছু দিবে ভালো গাড়ি ভালো জামা সব দিবে কিন্তু তুই তা পারবি না অবোধ ছেলে।

বিঃদ্র : আজকে যারা জিয়ার আদর্শে আদর্শিত হয়ে আওয়ামী তে যোগ দিয়েছে তাদের কে উৎসর্গ করেই লেখা ওরা ছিলো ঠিক কাল্পনিকারর মতো সুবিধা নিতে নিতে আসছিলো সুবিধা দিতে নয়। সুযোগ বুঝে উড়াল দিলো।পরিশেষে একটা কথাই বলতে চাই কাওয়া কাওয়াই থেকে যায়।

লেখক:- ছাত্রদল নেতা, কক্সবাজার জেলা ছাত্রদল।

Comments

comments

Check Also

গ্রাম মরে যাবে! শহর বেঁচে থাকবে? ।। তানভিরুল মিরাজ রিপন

তানভিরুল মিরাজ রিপন : আমলাতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থা,রাজধানীমুখী এলিট সমাজ,এবং রাজধানী কেন্দ্রীক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হওয়াতেই দেশের নিম্নআয়ের …