Home / গবেষণা / দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের বস্তু নিয়ে ভাবনা

দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের বস্তু নিয়ে ভাবনা

মোঃ লুৎফর রহমান :

বস্তুর ধারণা নিয়ে আলোচনায় এঙ্গেলসের বক্তব্য সামনে আসে । তাঁর মতে পৃথিবীর সাথে মানুষের একটি ব্যবহারিক সম্পর্ক আছে । বস্তুই প্রধান । বস্তু থেকে চেতনার উদ্ভব । জগৎকে জানা সম্ভব । এটি হচ্ছে দর্শনের বুনিয়াদী প্রশ্নের উত্তর । এই কাঠামোর মধ্যেই কেবল বস্তুর সংজ্ঞা নির্ণয় করা যায় । এঙ্গেলস বলেছিলেন, বস্তুর প্রত্যয় বা ধারণাটি হলো একটি বিমূর্তন, অর্থাৎ বাহ্যিক পৃথিবীর বস্তুসমূহ, প্রক্রিয়াসমূহ, এবং এর সম্পর্কের অসীম বৈচিত্র্যের এক সার্বিক প্রতিফলন বা চেতনায় পুনরায় উপস্থাপন । পরবর্তীতে মার্কস ও এঙ্গেলস কর্তৃক সূত্রায়িত দ্বান্দ্বিক বস্তুবাদের মূল নীতিসমূহের ভিত্তিতে এবং প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের আবিষ্কারগুলো সার্বিকভাবে বিশ্লেষণের মাধ্যমে লেনিন বস্তুর সংজ্ঞা নির্ণয় করেছিলেন ।

তিনি বলেছিলেন, বস্তু হলো এক দার্শনিক প্রত্যয় বা ধারণা যা দ্বারা বোঝা যায় সেই বিষয়গত বাস্তবকে যা মানুষকে অনুভবের যোগান দেয়, আবার তা অনুভবগুলো থেকে স্বতন্ত্রভাবে বিদ্যমান থাকে এবং বস্তু অনুভবগুলো দ্বারা অনুকৃত (followed) আলোকচিত্রিত (photographed) ও প্রতিফলিত (reflected) হয় । লেনিনের সংজ্ঞা বিশ্লেষণ করলে দাঁড়ায় – (১) বস্তুর অস্তিত্ব থাকে মানুষের চেতনার বাইরে । অর্থাৎ বস্তুর অস্তিত্ব কারো ইচ্ছের উপর নির্ভর করে না । (২) বস্তু মানুষকে অনুভব বা সংবেদনের যোগান দেয় । আবার বস্তু অনুভবগুলো থেকে স্বাধীনভাবে বিরাজ করে । অর্থাৎ বস্তুই আদি, প্রধান এবং চেতনা-নিরপেক্ষ । (৩) মানুষের ইন্দ্রিয়সমূহ যেমন চোখ-কান-নাক-ত্বক-জিহ্বা দ্বারা বস্তু অনুকৃত (অনুসরণকৃত), আলোকচিত্রিত (ছবিপ্রাপ্ত), প্রতিফলিত (চেতনা-নিত) হয় ।

মানুষের ইন্দ্রিয়সমূহ পারিপার্শ্বিক বস্তুজগৎকে প্রতিফলিত বা ভাবগতভাবে পুনরায় উপস্থাপনের ক্ষমতা রাখে । এই ক্ষমতাকে বিজ্ঞানে চেতনা বলে । বস্তু ও চেতনার মধ্যে এক পারস্পরিক গভীর সম্পর্ক বিদ্যমান । এ দুটো পরস্পর নির্ভরশীল । বস্তু যে-রূপই ধারণ করুক না কেনো শেষ পর্যন্ত অনুভবের সাহায্যে তাকে জানা যায় । বেতার তরঙ্গ, অতিশাব্দিক কম্পন কানে শোনা যায় না । কিন্তু এ সবের অস্তিত্ব নির্ণয় করা যায় যন্ত্রের সাহায্যে । সুতরাং বস্তু হচ্ছে চৈতন্য-নিরপেক্ষ অস্তিত্বশীল এক বিষয়গত বাস্তবতা, মানুষের সংবেদন বা অনুভবের মধ্যে যার অবস্থান ।

Comments

comments

Check Also

স্লো পয়জনিং ।। অনুপম আইচ

রসায়ন শাস্ত্রে ‘স্লো পয়জনিং’ নামে একটা ঘটনার উল্লেখ আছে। কিছু ভারী ধাতু আছে (যেমনঃ শীসা) …