ভয়ংকর সিরিয়াল কিলার: পর্ব-৪

আরাফাত এইচ রাশেদ :
বাংলাদেশের একজন সিরিয়াল কিলার,যার নাম আছে বিশ্বের দুর্ধর্ষ সিরিয়াল কিলারের তালিকায়।কে সেই দুর্ধর্ষ সিরিয়াল কিলার?আসুন তাহলে পরিচিত হই তার সাথে।
ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার মাদালঘোনা গ্রামে তার জন্ম।পেশাজীবন শুরু করেন খুলনা রেল স্টেশনে কুলির সহযোগী হিসেবে।সেখানে রেললাইনের পাত চুরি করে বিক্রি করে এমন একটি দলের সাথে যুক্ত হয়।পরবর্তীতে নিজেই একটি দল গঠন করে।
১৯৭৬-৭৭ সালে রামদা বাহিনী নামে একটি দল গঠন করে।এই রামদা বাহিনী নিয়ে তিনি ১৯৮২ সালে ৪ ও ৫ নম্বর ঘাট এলাকা দখল করে এবং এর একক নিয়ন্ত্রক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন।ঘাট এলাকায় চুরি ডাকাতি ও বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সংঘটিত করতেন।
একসময় তিনি রাজনীতিতে প্রবেশ করেন,হয়ে উঠেন আরো ক্ষমতাশালী। ১৯৮৫ থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত খুলনা রেলওয়ের সম্পত্তি দখল,জোর পূর্বক করে ব্যক্তিগত সম্পত্তি দখল,মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি সহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকতো।
১৯৯১ সালে তিনি ৪ নম্বর ঘাট এলাকার একজনের বরফকল দখল করেন এবং সকল ব্যবসায়ীকে তার বরফকল থেকে বরফ কিনতে বাধ্য করতেন।আর তার এই বরফকলটিই ছিলো তার নির্যাতন কেন্দ্র।এখানেই তিনি মানুষকে তুলে এনে অমানুষিক নির্যাতন করে হত্যা করতেন।তার বিরুদ্ধে ৬০ টির বেশী হত্যাকান্ডের অভিযোগ আনা হয়।তার সহযোগী নূরে আলম আদালতে তার ২৪টি হত্যাকান্ডের বর্ণনা দেন।
এই দুর্ধর্ষ খুনীর নাম হলো এরশাদ শিকদার।যাকে ১৯৯৯ সালে গ্রেপ্তার করা হয় এবং ২০০৪ সালের ১০ ই মে মধ্যরাতে খুলনা কেন্দ্রীয় কারাগারে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।অবসান ঘটে এক ভয়ংকর অধ্যায়ের।

Comments

comments

Updated: ১ অক্টোবর, ২০১৭, ১২ টা ৫৪ মিনিট, অপরাহ্ণ — ১২:৫৪ অপরাহ্ণ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আমার কলম © ২০১৭, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। লেখা পাঠানোর ঠিকানা: editor@amarkolom.com