Home / সম্পাদকের কলম / এই হরতাল জনমানুষের হরতাল ।। শিপ্ত বড়ুয়া

এই হরতাল জনমানুষের হরতাল ।। শিপ্ত বড়ুয়া

অবৈধভাবে কারণবিহীন বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সারাদেশে বাম দলগুলোর ডাকা হরতালে হামলা চালিয়েছে বাংলাদেশের সরকারী পেটুয়া বাহিনী পুলিশ । অথচ এই হরতাল ছিলো শান্তিপূর্ন এবং গণমানুষের দাবী আদায়ের হরতাল । এই হরতালে কোথাও কোন গাড়ি ভাঙা হয়নি এবং পেট্রোল বোমা দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারা হয়নি, তারপরেও পুলিশ এই শান্তিপূর্ণ হরতাল প্রতিরোধে সচেষ্ট ছিলো । সরকার মনে করে পুলিশ বাহিনী দিয়ে জনমানুষের দাবী আদায়ের হরতাল প্রতিরোধ করতে পারবে । কিন্তু তা কখনো সম্ভব নয়, এবং আগেও কখনো কেউ সফল হয়নি এই সৈরাচারী কর্মকান্ডে ।

নামে-বেনামে, মাসে-বছরে সরকার অনৈতিকভাবে গ্যাস-বিদ্যুত এবং নানান কিছুর দাম বাড়িয়ে দেন আর সরকারের মন্ত্রীগণ কোটিপতি বনে যান। যদিও এই দৃশ্য অনেক আগের। একবার খবর নিয়ে দেখুন কোন মন্ত্রীদের কোটি কোটি বিলিয়ন জমা নেই! বাংলাদেশের প্রত্যেক মন্ত্রীর রয়েছে অঢ়েল সম্পদ। এগুলো কি তাদের বাপ-দাদার ? না। এগুলো সাধারণ মানুষকে মেরে খাওয়ার টাকা। দেশের বর্তমান সরকার মানুষের কথা ভাবছে না, ভাবছে কিভাবে নিজেদের ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখা যাবে! এভাবে ক্ষমতায় থাকা যাবে না, ক্ষমতায় থাকতে হলে মানুষের পাশে থেকে মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

আজকে সারাদেশে হরতাল পালিত হয়েছে, কোথাও কোন দেশের সম্পত্তি নষ্ট করা হয়নি। শুধুমাত্র অনৈতিকভাবে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি রোধে এই হরতাল। সরকার যদি মনে করে থাকে এই দেশ শুধু পুঁজিবাদের দখলেই থাকবে আজীবন তাহলে সেটা নিছক ভুল। এই দেশেই একদিন সর্বহারার লাল পতাকা উড়বে এবং প্রতিটি মানুষের সমান অধিকার সুনিশ্চিত হবে। আজকের হরতাল সফল হয়েছে এবং ভবিষ্যতে এসব নানান ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আরো সোচ্চার হোক বাংলার আপামর জনতা।

এই হরতাল জনমানুষের হরতাল, এই হরতাল দাবী আদায়ের হরতাল ।

লেখক: সম্পাদক, আমার কলম।

Comments

comments

Check Also

‘পুরুষতন্ত্র’কে জায়েজ করার কিছু নেই ।। লাবণী মন্ডল

লাবণী মন্ডলঃ  হত দরিদ্র, পশ্চাৎপদ, কুসংস্কারাবদ্ধ বাংলাদেশের নারী সমাজ দারিদ্র্যের কশাঘাতেতো বটেই উপরন্তু সামাজিক-পারিবারিক শোষণ-নির্যাতনের …