সুত্রপাত / ধর্ম ও দর্শন / মার্ক্সীয় নৈতিকতা ও করণীয়
Halim

মার্ক্সীয় নৈতিকতা ও করণীয়

মোর্শেদ হালিম:

কার্ল মার্কস হেগেলের দ্বন্দ্ব থেকে ভাব কে বিতাড়িত করেন। কাণ্টের দর্শনের গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যা দেন হেগেল। তাই হেগেল বাতিল হলে আলাদা করে কাণ্টকে বাতিল করতে হয় না। এবং কাণ্টের বাতিলের মধ্য দিয়ে সকল আদর্শিক ধ্যাণ ধারণা বিলুপ্ত হয়। ফয়ের বাকের বস্তুবাদ ছিল যান্ত্রিক। তিনি বস্তুর পরিমাণগত পরিবর্তন কে স্বীকার করলেও মন ও চেতনা কে নাকচ করেন। কিন্তু মার্কস দেখালেন যে বস্তুতে চৈতন্য আছে কিন্তু তা বস্তু থেকে বিচ্ছিন্ন নয়। বরং চৈতন্যও অন্যান্য অঙ্গের মতই একটি বস্তুজাত চেতনা অঙ্গ। জঁ পল সার্ত্রে হলেন কাল্পনিক সমাজতন্ত্রীদের মধ্যে অন্যতম একজন। মার্কস এই ধরণের কাল্পনিক সমাজতন্ত্রের স্থলে সমাজকে ব্যাখ্যা করলেন বৈজ্ঞানিক নিয়মে।

তিনি সমাজ ব্যাখ্যা করেন এইভাবে, পরিমাণগত পরিবর্তন থেকে গুণগত পরিবর্তন এবং গুণগত পরিবর্তন থেকে পরিমাণগত পরিবর্তন, বিপরীত শক্তি ঐক্যের সংগ্রাম ও নেতির নেতিকরণ। বুর্জোয়া সমাজে প্রলেতারিয়েতের ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামই নতুন সমাজের জন্ম দেয়। এছাড়াও তিনি অর্থনীতিবিদ অ্যাডাম স্মিথ ও ডেভিড রিকার্ডো এর অর্থনীতি বিশ্লেষণ করে মার্কস উদ্ধৃত্ত মূল্য তত্ত্বের জনক হলেন। তিনি দেখালেন মালিক কিভাবে শ্রমিকের শ্রম বিচ্ছিন্ন করে শোষণ করে চলছে। এর প্রতিবাদে প্রলেতারিয়েতের জন্য মুনাফার দাবি তুলেন। পুঁজি, মজুরির বিলুপ্তি চান। অবশেষে মার্ক্সীয় নৈতিকতা বলতে যা বুঝি তা হচ্ছে, “প্রতিবন্ধকতাহীন ভাবে প্রত্যেকটা মানুষের স্বাধীন বিকাশের নিশ্চয়তা।”

কিন্তু বৃহত্তর অর্থে আদিসমাজে প্রতিবন্ধকতা ছিল প্রকৃতি, দাসসমাজে ছিল দাসমালিকেরা, সামন্তযুগে রাজাগণ এবং বুর্জোয়া সমাজে প্রতিবন্ধকতা হচ্ছে পুঁজি, মজুরি ও সেলামি। তাই মানুষের স্বাধীন বিকাশের জন্য পুঁজির বিলুপ্ত ঘটানো আমাদের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য। কিন্তু আমরা আছি সমাজ বিকাশের আধা-সামন্তযুগে। বাংলাদেশে সামন্ত-সম্পর্ক, সামন্ত-পরিবারতন্ত্র, পিতৃতান্ত্রিকতা, ধর্মীয় ভাবগম্ভীর্য, কর্ম বা মালিক পছন্দের স্বাধীনতা নেই। বুর্জোয়া বাণিজ্যের বিকাশও যথার্থ নয়। তাই যদিও জানি পুঁজির বিলুপ্তি ঘটানোই নৈতিকতার আক্ষরিক ভাবে শেষ রূপ। তবু আজকের বাস্তবতায় সামন্ত সম্পর্ক, পরিবারতন্ত্রের বিলোপ, ধর্ম পছন্দের স্বাধীনতার জন্য, কাজ পছন্দের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করাকেই আমি মার্ক্সীয় দর্শনের নৈতিকতা বলে মনে করি। তবে এই নৈতিকতা কাণ্টের আদর্শবাদ, শুদ্ধতাবাদের পরিপন্থী।

লেখক: ছাত্র ইউনিয়ন নেতা।

Comments

comments

error: Content is protected !!