সুত্রপাত / দর্শকের চোখে / বিপ্লবীদের কথা’য় যা থাকছে

বিপ্লবীদের কথা’য় যা থাকছে

লাবণী মন্ডল:

ইলা-রমেন কথাঃ প্রাসঙ্গিক রাজনীতি- আহমদ রফিক, সোমেন চন্দ- হায়াৎ মামুদ, জিজ্ঞাসা-হেনরী এলেগ, অনুবাদঃ রণেশ দাশগুপ্ত

ইলা-রমেন কথাঃ প্রাসঙ্গিক রাজনীতি
নবাবগঞ্জ-নাচোল এলাকার-তেভাগা আন্দোলনের প্রধান নেতানেত্রী রমেন মিত্র, ইলা মিত্র, বিশেষভাবে ইলা মিত্রকে নিয়ে ১৯৫৩-’৫৪ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বামরাজনীতির ছাত্রনেতা আহমদ রফিকের স্মৃতিচারণমূলক রচনা ‘ইলা-রমেন কথা: প্রাসঙ্গিক রাজনীতি’। এ বইটির রচনা মূলত ওই সময়পর্বে লেখা প্রতিদিনকার ডায়েরির ভিত্তিতে সেই সঙ্গে তথ্য লেখকের স্মৃতি, তাৎক্ষণিক খবরাদি এবং তেভাগা বিষয়ক তার বিস্তারিত পাঠের নির্ভরতায়।
বইটি লেখকের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতানির্ভর ঘটনাদির বয়ান বলে ইলা মিত্রকে নিয়ে এতাবৎ লেখার তুলনায় অনেক অজানা তথ্য উঠে এসেছে যা-পাঠকের জন্য উপভোগ্য হবে বলে আমাদের বিশ্বাস। এছাড়াও এখানে রয়েছে রাজনৈতিক ঘটনাবলীর বিশ্লেষণ, যে বিশ্লেষণের সঙ্গে একমত না হলেও বইটি পাঠের উপভোগে বাধা তৈরি হবে না বলে আমাদের ধারণা। বইটি ‘বিপ্লবীদের কথা’ প্রকাশিত পুস্তক তালিকা এক অভিনব সংযোজন।

সোমেন চন্দ- হায়াৎ মামুদ
কে নিয়ে এই জীবনীগ্রন্থ লেখা হয়েছিল ১৯৮৬ সালে ঢাকার বাংলা একাডেমির আমন্ত্রণে, তাঁদের ‘জীবনী গ্রন্থমালা’ সিরিজের জন্য। উদ্দেশ্য ছিল সাহিত্য/সাহিত্যিকের মূল্যায়ন নয়, তথ্যভিত্তিতে ভবিষ্যৎ গবেষকবৃন্দ সহায়তা পেতে পারেন। আদর্শ ছিল কলকাতার বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদের ‘সাহিত্য-সাধক চরিতমালা।’
সুদীর্ঘকাল বইটি পুনর্মুদিত হয় নি। আমার জন্য ঘটনাটি আনন্দের যে, ‘বিপ্লবীদের কথা’ প্রকাশনা সংস্থা পুনঃপ্রকাশের দায়িত্ব গ্রহণ করলেন।
হায়াৎ মামুদ
পৌষ১৪২৪, জানুয়ারি ২০১৮

জিজ্ঞাসা-হেনরী এলেগ, অনুবাদঃ রণেশ দাশগুপ্ত
ফরাসি বিপ্লবের পর ফরাসি ছত্রীবাহিনী কর্তৃক আলজিরিয়ার দেশপ্রেমিক স্বাধীনতা সংগ্রামীদের উপর যে নিষ্ঠুর-নির্মম ও লোমহর্ষক নির্যাতনের ইতিহাস রয়েছে, তা আমরা আদৌ জানি না। হেনরী এলেগ ‘দি কোশ্চেন’ (জিজ্ঞাসা) বইয়ে ফরাসি ছত্রীবাহিনীর লোমহর্ষক নির্যাতনের ইতিহাস তুলে ধরেছেন।
হেনরী এলেগের ‘দি কোশ্চেন’ বইটি অনুবাদ করেছেন- রণেশ দাশগুপ্ত। ভূমিকা লিখেছেন- সাংবাদিক জহুর হোসেন চৌধুরী।

Comments

comments