প্রার্থনায় তুমি

//প্রার্থনায় তুমি

প্রার্থনায় তুমি

তৃষ্ণা দাশ:

আমি চাই,
তুই অবুঝ হও।

তোর দেয়া ব্যাখ্যাহীন কষ্টে আমি ডুবে যেতে চাই।
দেয়া কষ্ট গুলো বুকে করে যত্ন করে জমিয়ে
রাখব রে।

মাঝেমাঝে বুক ভারী হবে, চোখ জ্বলবে,
গলার স্বর আটকে যাবে,
মুখে অরুচি, নির্ঘুম রাত,
এদিক ওদিন হাঁটা,
অসংলগ্ন বাক্যালাপ….
হবে হোক।

তবু তোকে কথা  দিলাম পাগলি,
এই আমি কখন নষ্ট হবো না,
হবো না হতাশাগ্রস্থ বা মাদাকাসক্ত।
ঐ যে বললাম,
তোর দেয়া কষ্ট বুকে রাখছি, রাখছি আর রাখছি।
একদিন হয়ত এই যে
বুক ভারী টা বুক চাপা ন্যায় হয়ে উঠবে।
বুক সিনসিন করা গ্যাষ্টিকের ব্যাথাটা
কে জানে কবে  হয়ে উঠবে, হার্টের ব্যামো।
তারপর….তারপরওৎ
নিয়মিত ওষুধ খাবো না।
তোকে কথা দিয়েছিলাম নষ্ট হবো না,
তাই কষ্ট পোষায় ব্যস্ত থাকব।

কারণ তোকে একদিনের জন্য, একটু দেখব বলে
এই এক স্বপ্নকে আশ্রয় করে
বেঁচে আছি।
একদিন,
তোর দেয়া কষ্টে অল্প বয়সে, বুকের এক শক্তপোক্ত ব্যামো করে বসব।
বুকের রক্ত চলাচলের সবকটি  পথ
ব্লক হয়ে যাবে।
আর

সে ব্লকের বাইপাস করাবে তুমি!!!

আর সেদিনই তুমি অামায় দুচোখ ভরে দেখতে বাধ্য, ছুঁতে বাধ্য!
আর আমি…. তাতেই আমি চিরসুখি হবো গো,
সে ছোঁয়া যেনো আজীবনের ছোঁয়া হয়।

সে ছোঁয়ায় আমি প্রাণ হারাবো।
আনন্দে প্রাণ হারাবো,
খুশিতে, উচ্ছ্বাসে, সাফাল্য আমি প্রাণ হারাবো গো।

আর তুমি হারাবে আমায়, চিরতরে, শেষবারের মতো।
ব্যার্থতায় মনে রাখবে আমায়।
মানুষ হয়ে ভালবাসো নি,
ডাক্তার হয়ে বাঁচাতে পারো নি।

তবু জেনো, শেষ পলকে বলে যাবো গো,
ভালবাসি তোমায়।
হয়ত সেদিন আমার  চোখের কোণের শেষ জলে পড়ে নিতে পারবে,
কি ছিলে তুমি আমার!

শেয়ার করুন
By | ২০১৮-০২-২৭T২২:১৩:২৫+০০:০০ ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৮|কবিতা|Comments Off on প্রার্থনায় তুমি