চিল

চিল

কি দুঃশ্চিন্তায় না দিন গুলো গেছে যে তার লক্ষ্মী ছাড়া
হারু গোয়ালার একটাই গাই ছিল
ওকেই শেষে বিক্রি করে বিয়ের যোগারযন্তর হলো সারা
হারু গোয়ালার একটাই মেয়ে ছিল
আইবুড়ো সেই মেয়ের নামে নিন্দেমন্দে মুখ ফেরাত পাড়া
হারু গোয়ালার একটাই স্বপ্ন ছিল
রাণীর মতো সাজবে মেয়ে,বাজবে সানাই,নাঁচবে লোকেরা
হারু গোয়ালা বড্ড গরীব মানুষ ছিল
পায়ের নিচে জমিন টলে ঋণে,বুকের উপর পাষাণ হানে খাঁড়া!
ডুলি আসার আগেই ভিটেয় পুলিশ এসে ভেড়ে
এনজিও বাবু চোখ রাঙিয়ে এলেন তেড়েফুঁড়ে-
“সুদে আসল দিতে হবে শালা,নচেৎ তুলে নেবো মেয়ে!”
ভাঙল আসর,থামল কাসর,দেখল লোকে নীরব চেয়ে!
বর ফিরেছে মধ্য পথে,ঘর পেলো না অভাগিনী মেয়ে-
ভাঙল আসর,থামল কাসর,দেখল লোকে নীরব চেয়ে।
মরণ পোকা মাথার ভেতর করছিল কিলবিল-
হঠাৎ ঘরে এঁটে গেল খিল
সংসার উঠানে ভীতু মুরগি ছানা,হঠাৎ এসে ছোঁ মেরেছে চিল!

শেয়ার করুন
By | ২০১৮-০৬-১৭T১৩:৩৭:১২+০০:০০ মে ২২, ২০১৮|কবিতা|০ Comments

Leave A Comment